তিনটি বাণিজ্যিক জাহাজে  ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হুথিদের


সময় ডেস্ক :    |    ০২:০৪ পিএম, ২০২৩-১২-০৪

তিনটি বাণিজ্যিক জাহাজে  ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হুথিদের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

দক্ষিণ লোহিত সাগরের আন্তর্জাতিক জলসীমায় তিনটি বাণিজ্যিক জাহাজ আক্রমণের শিকার হয়েছে। এসময় ইসরায়েলি দুটি জাহাজে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করার দাবি করেছে ইয়েমেনের বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুথি। রবিবার (৩ ডিসেম্বর) এ তথ্য জানিয়েছে মার্কিন সামরিক বাহিনী। এক প্রতিবেদনে মার্কিন সংবাদমাধ্যম এবিসি নিউজ এই খবর প্রকাশ করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, হুথি অধিকৃত অঞ্চল থেকে এসব হামলা করা হয়েছে।

এক বিবৃতিতে হুথি’র মুখপাত্র জানান, ইয়েমেনের জনগণের দাবি আদায় ও ফিলিস্তিনি জনগণের পাশে দাঁড়াতে ইসলামি দেশগুলোর দৃষ্টি আকর্ষণের উদ্দেশে এ হামলা চালানো হয়েছে।

এক বিবৃতিতে মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ড বলেছে, লোহিত সাগরে বাণিজ্যিক জাহাজগুলোর সাহায্যের ডাকে সাড়া দিয়েছে দেয় যুদ্ধজাহাজ ইউএসএস কার্নে। বাণিজ্যিক জাহাজকে সাহায্যকালে কার্নে তিনটি ড্রোন লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘এই হামলাগুলো আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও সামুদ্রিক নিরাপত্তার জন্য সরাসরি হুমকি। তারা বিশ্বের একাধিক দেশের প্রতিনিধিত্বকারী আন্তর্জাতিক ক্রুদের জীবন বিপন্ন করেছে।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, হুথিদের এ হামলার পেছনে ইরানের যুক্ত রয়েছে। এমন ধারণা করার জন্য যথেষ্ট কারণ রয়েছে বলেও জানানো হয়।

‘আন্তর্জাতিক মিত্র ও অংশীদারদের’ সঙ্গে মিলে এ হামলার উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে বলেও হুশিয়ারি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ইসরায়েলের উপর ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের ৭ অক্টোবরের সন্ত্রাসী হামলার জেরে গাজা উপত্যকায় যুদ্ধের সূত্রপাত হয়। পেন্টাগন জানিয়েছে, এর পর ইয়েমেনের হুথি-নিয়ন্ত্রিত এলাকা থেকে লোহিত সাগরে চলাচল করা জাহাজে বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছে।

মূলত, ইসরায়েলি মালিকানাধীন জাহাজকে লক্ষ্যবস্তু করছে হুথিরা। এসব ঘটনায় বরাবরই ইরানের সংশ্লিষ্টতার দাবি করে আসছে ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্র। তবে দেশ দুটির  এমন দাবি নাকচ করে দিয়েছে তেহরান।